Saturday, April 20, 2024
More

    সর্বশেষ

    আইফোন উৎপাদন করবে টাটা গ্রুপ

    ভারতে আইফোন উৎপাদন করতে যাচ্ছে টাটা গ্রুপ। তাইওয়ানভিত্তিক প্রযুক্তি কোম্পানি উইস্ট্রনের সঙ্গে ভারতে একটি যৌথ উদ্যোগ চালুর কথা ভাবছে কনগ্লোমারেটটি। খবর বণিক বার্তা।

    চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ক্রমাগত বাড়তে থাকা উত্তেজনার পাশাপাশি চীনের বিভিন্ন শহরে ঘন ঘন লকডাউনের কারণে আইফোনের উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় সম্প্রতি চীনের বাইরে আইফোন উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে অ্যাপল।

    ভারতের বাজারে লবণ থেকে শুরু করে সফটওয়্যার প্রায় সবকিছুই উৎপাদন ও বিক্রি করে টাটা গ্রুপ। এবার আইফোন উৎপাদনে যেতে পারে ভারতীয় সংস্থাটি। সেজন্য তাইওয়ানের উইস্ট্রন করপোরেশনের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে তারা। বিদেশ থেকে আনা যন্ত্রাংশ এসেম্বল করে ভারতেই আইফোন তৈরি করা হবে। তাইওয়ানের ওই সংস্থাটির কাছ থেকে পণ্য উৎপাদন, সরবরাহ ও এসেম্বল সংক্রান্ত সাহায্য চেয়েছে টাটা।

    এদিকে চীন ও ভারতে এতদিন এ কাজ করত তাইওয়ানের দুটো টেক সংস্থা উইস্ট্রন ও ফক্সকন। এবার টাটা গ্রুপ প্রথম ভারতীয় সংস্থা হিসেবে আইফোন উৎপাদনের অনুমোদন পেতে যাচ্ছে বলে এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। সম্ভাব্য যৌথ উদ্যোগটি বাস্তবায়ন হলে ভারতে আইফোনের বাজার পাঁচ গুণ বাড়বে বলে জানা গিয়েছে।

    কয়েক দশক ধরেই বিশ্বব্যাপী উৎপাদনের কেন্দ্র হয়ে উঠেছে চীন। টাটা গ্রুপ আইফোন উৎপাদনে গেলে প্রযুক্তি খাতে চীনকে কড়া টক্কর দিতে পারবে ভারত। কারণ অ্যাপলের মতো সংস্থা ভারতে আইফোন তৈরির সিদ্ধান্ত নিলে অন্যান্য বৃহৎ টেক সংস্থাগুলোও অনুপ্রাণিত হতে পারে।

    কভিড-পরবর্তী পরিবেশে চীনের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চাপা উত্তেজনা বেড়েছে। এ পরিস্থিতিতে উৎপাদনে চীনের ওপর থেকে নির্ভরশীলতা কমানোর কথা ভাবছে বহু টেক সংস্থা। যদিও ভারতে আইফোন উৎপাদন শুরু হওয়ার পরেও চীন থেকেই বেশির ভাগ উৎপাদন চালিয়ে যাবে অ্যাপল।

    সম্প্রতি প্রকাশিত এক রিপোর্টে জানানো হয়েছে, টাটা গ্রুপের সঙ্গে আইফোন তৈরির এ চুক্তি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে এ নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। ভারতে উইস্ট্রনের শেয়ার ক্রয়ের কথা ভাবছে টাটা। পরে নতুন কারখানা নির্মাণ হলে উৎপাদনে যাবে ভারতের অন্যতম বৃহৎ এ ব্যবসায়িক সংস্থাটি। তবে এ ব্যাপারে কোনো সংস্থার পক্ষেই এখনই কিছু নিশ্চিত করে বলা হয়নি। উইস্ট্রনের প্রতিনিধি এ চুক্তির বিষয়ে মন্তব্য করতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। টাটা ও অ্যাপলের পক্ষ থেকেও কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

    তবে টাটা গ্রুপের চেয়ারম্যান নটরাজন চন্দ্রশেখরন জানিয়েছেন, ইলেকট্রনিকস ও উন্নত প্রযুক্তির পণ্য উৎপাদনই তাদের মূল লক্ষ্য। সফটওয়্যার, ইস্পাত ও গাড়ির মতো শিল্প খাত টাটার ব্যবসায়িক ক্ষেত্র ছিল। দক্ষিণ ভারতে আইফোন চেসিস উৎপাদন তাদের স্মার্টফোনের বাজারে প্রবেশের প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে ধরা হচ্ছে।

    এদিকে ২০১৭ সাল থেকে উইস্ট্রন ভারতে আইফোন উৎপাদন শুরু করলেও প্রচুর লোকসান গুনতে হয়েছে। তাইওয়ানভিত্তিক সংস্থাটি কর্ণাটকে আইফোন এসেম্বল করে। সেক্ষেত্রে টাটার মতো জায়ান্ট গ্রুপের সঙ্গে চুক্তি করলে উইস্ট্রনের জন্য তা লাভজনক হবে।

    তাছাড়া ১ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলারের বৃহৎ বাজার এবং প্রযুক্তি উৎপাদনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আর্থিক প্রণোদনা ফক্সকন ও পেগাট্রনের মতো অ্যাপলের সরবরাহকারী সংস্থাগুলোকে ভারতের ব্যাপারে আগ্রহী করে তুলেছে।

    যদিও প্রযুক্তি খাতের শ্রমিকদের জন্য যথোপযুক্ত কর্মপরিবেশ এখনো নিশ্চিত হয়নি এবং এরই মধ্যে সেখানে শ্রমিক বিদ্রোহের ঘটনা ঘটেছে, তবু ভারতীয় সংস্থা হিসেবে টাটা গ্রুপ আইফোন উৎপাদন শুরু হওয়ার খবর প্রযুক্তিপ্রেমীদের কাছে ইতিবাচক হিসেবে হাজির হয়েছে। ভারতে আইফোন উৎপাদন হলে এ অঞ্চলে প্রিমিয়াম ফোনটির দাম কিছুটা কমতে পারে এবং উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলোয় এর বাজার সম্প্রসারণ হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

    সর্বশেষ

    পড়েছেন তো?

    Stay in touch

    To be updated with all the latest news, offers and special announcements.