Thursday, June 13, 2024
More

    সর্বশেষ

    পেপারফ্লাই নিয়ে এল ‘ক্যাশলেস পে’

    ক্রেতাদের পছন্দকে গুরুত্ব দিয়ে ও অনলাইনে কেনাকাটা করার ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে দেশের বৃহত্তম হোম ডেলিভারি নেটওয়ার্ক পেপারফ্লাই মাস্টারকার্ড ও ইস্টার্ন ব্যাংকের (ইবিএল) সঙ্গে পার্টনারশিপের মাধ্যমে একটি ডিজিটাল পেমেন্ট অন ডেলিভারি সলিউশন ‘ক্যাশলেস পে’ উদ্বোধন করেছে। যেসব ক্রেতা অনলাইনে অর্ডার দিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে ও নিরাপদে পণ্য নিজেদের দোরগোড়ায় পেতে চান তাঁরা পেপারফ্লাইয়ের নতুন এই ডিজিটাল পেমেন্ট সেবার মাধ্যমে এখন থেকে পণ্য গ্রহণের সময় নগদে মূল্য পরিশোধের পরিবর্তে ডিজিটাল উপায়ে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। সারা দেশেই মিলবে এই সেবা।

    ডিজিটাল পেমেন্ট অন ডেলিভারি সিস্টেম ‘ক্যাশলেস পে’ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক হুমায়ুন কবির, বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির এবং ই-ক্যাব সভাপতি শামী কায়সার।এ সময় উপস্থিত ছিলেন পেপারফ্লাইর চীফ মার্কেটিং অফিসার রাহাত আহমেদ, ইস্টার্ন ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আলী রেজা ইফতেখার,মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল প্রমুখ।

    নতুন এই ক্যাশলেস পে সেবাটি হলো একটি অগ্রসর প্রযুক্তিভিত্তিক সমাধান। ইস্টার্ন ব্যাংকের এর মাধ্যমে মাস্টারকার্ডের পেমেন্ট টেকনোলজির সহযোগীতায় সেবাটি নিশ্চিত করবে পেপারফ্লাই। ক্যাশলেস পেমেন্টের ক্ষেত্রে দেশে এটি প্রথম সেবা, যার জন্য কোনো পয়েন্ট অব সেলস (পিওএস) মেশিনের প্রয়োজন নেই। ক্রেতারা পেপারফ্লাইর সরবরাহ করা পণ্যের দাম পরিশোধ করতে নিজেদের স্মার্টফোন ব্রাউজার ও তাতে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই সহজে ক্যাশলেস পে’র মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। সময়োপযোগী এই উদ্যোগের ফলে ডিজিটাল পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডার বা প্রযুক্তিভিত্তিক লেনদেন সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর নেটওয়ার্ক অনলাইনে গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর মাধ্যমে আরো এক ধাপ এগিয়ে যাবে।

    জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, পরিবর্তিত নতুন সময়ে ভার্চুয়াল মুদ্রার দিকে আমাদের মনযোগী হতে হবে। বিটকয়েন এর মতো মুদ্রাকে অনুমোদন না দিলেও এই বিষয়ে আমাদের ভাবতে হবে। বিষয়টি নিয়ে নীতি নির্ধারনি বৈঠক করতে হবে। তা না হলে আমরা পিছিয়ে পড়বো এবং সাইবার সিকিউরিটির দিকে নজর দিয়েই আমরা ক্যাশলেস সোসাইটি গড়ে তুলবো।

    রাহাত আহমেদ বলেন, এখন থেকে ক্রেতা-ভোক্তাদের সামনে যেমন ক্যাশলেস উপায়ে পণ্যের দাম পরিশোধের নতুন বিকল্প এসে গেছে তেমনি আমাদের মতো অনলাইন মার্কেটপ্লেস এবং অনলাইনে পণ্য বিক্রয়কারীদের জন্যও দ্রুত নগদ অর্থ প্রবাহের সুযোগ তৈরি হয়েছে। প্রচলিত ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে একসঙ্গে এভাবে ক্রেতা-ভোক্তা উভয়ের জন্যই পণ্য ডেলিভারি দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নগদ অর্থের মাধ্যমে লেনদেন সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। কারণ তা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। আমাদের নতুন সেবা চালুর সুবাদে সমগ্র অনলাইন ইকো-সিস্টেমে নগদ অর্থের লেনদেন প্রচলিত ব্যবস্থার চেয়ে অধিকতর দক্ষতার সঙ্গে সম্পন্ন হবে।

    আলী রেজা ইফতেখার বলেন, ডিজিটাল পেমেন্ট বা প্রযুক্তিভিত্তিক সেবার মাধ্যমে লেনদেন করার বিষয়ে দেশের ভোক্তাদের বিশ্বাস দিনদিন বাড়ছে। এভাবে নতুন ক্যাশলেস পে সেবাটি উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাবে।এই সেবা চালুর মাধ্যমে ডিজটাল বাংলাদেশ গঠনের রুপকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আমরা আরো এক ধাপ এগিয়ে যাব।

    সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল বলেন, সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের রুপকল্প বাস্তবায়নে সহয়তা করতে মাস্টারকার্ড তার পার্টনারদের সঙ্গে অত্যন্ত নিবিড়ভাবে কাজ করে চলেছে, যাতে নিত্যনতুন ডিজিটাল পেমেন্ট সেবা সহজলভ্য করে তোলা যায়। বর্তমান কোভিড- ১৯ মহামারির দুঃসময়ে ই-কমার্স ও ডিজিটাল পেমেন্ট সেবা জনগণের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। জনগণ এখন নগদ অর্থে লেনদেন কমিয়ে ডিজিটাল উপায়ের লেনদেনের দিকে ঝুঁকছেন। কোভিড- ১৯ মহামারির পরেও এই ডিজিটাল উপায়ে লেনদেন অব্যাহত থাকবে।

    সর্বশেষ

    পড়েছেন তো?

    Stay in touch

    To be updated with all the latest news, offers and special announcements.