Sunday, July 14, 2024
More

    সর্বশেষ

    আইসিটি বিভাগকে চাকরিচ্যুতি বিষয়ক আইনি নোটিশ দিয়েছে কামরুজ্জামান

    টেকভিশন ডেস্ক: আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিবসহ উক্ত বিভাগের একাধিক কর্মকর্তাকে বেআইনিভাবে চাকুরিচ্যুত করায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিবসহ উক্ত বিভাগের অন্তর্গত ফোর টায়ার ডাটা সেন্টার প্রকল্পের একাধিক কর্মকর্তা বরাবর , অপারেশন জ্যাকপটের বীর মুক্তিযোদ্ধা নৌ-কমান্ডোরের সন্তান ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান এ আইনি নোটিশ পাঠিয়েছন ।
    উক্ত আইনি নোটিশে ইঞ্জিনিয়ার মোঃ কামরুজ্জামানের আইনজীবী এডভোকেট এ ইউ জেড প্রিন্স উল্লেখ করেছেন ইঞ্জিনিয়ার মোঃ কামরুজ্জামান (রাজু) তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীন সরকারের ফোরটিডিসি প্রকল্পে মেইনটিনেন্স ইঞ্জিনিয়ার পদে ২০১৬ সালের মে মাস থেকে চাকুরি করে আসছিলেন। ২০১৯ সালের ১১ই জুন যুগ্মসচিব আবু সাঈদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক পত্রযোগে ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান রাজুকে বেআইনিভাবে উক্ত পদ থেকে অপসারণ করা হয়। উক্ত পদে পুনঃবহালের জন্য নোটিশে উল্লেখ করা হয়। অন্যথায় ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান রাজু কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেবেন বলে বলা হয়।
    উল্লেখ্য এই প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক সরকারের যুগ্মসচিব আবু সাঈদ চৌধুরী বিসিএস ৮ম ব্যাচের একজন কর্মকর্তা।
    তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীন সরকারের ফোরটিডিসি প্রকল্পটি শুরু থেকেই দুর্নীতিগ্রস্থ একটি প্রকল্প হিসেবে সমালোচিত। গত ০৯ই মার্চ, ২০১৯ একটি দৈনিক পত্রিকায় এক হাজার ছয়শো কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত ফোর টায়ার ডাটা সেন্টার প্রকল্পে চাইনিজ কোম্পানি জেডটিই কর্পোরেশনকে লাইসেন্সবিহীন সফটওয়্যার ব্যবহার করার তথ্য ফাস হয়ে যাওয়ার একদিন পরই মেইনটিনেন্স ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামানের চাকুরি থেকে অব্যাহতি দেওয়ায় জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে৷
    চাইনিজ কোম্পানি জেডটিই সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে যে সফটওয়্যার ব্যবহার করছে তা দিয়ে ডাটা সেন্টার থেকে ডাটা ও তথ্য চুরির সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে যা রাষ্ট্রের নিরাপত্তার সাথে সংশ্লিষ্ট। বাংলাদেশের সরকারি বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানের ডাটা বা তথ্য সংরক্ষণের বৃহত্তর প্রকল্প ফোর টায়ার ডাটা সেন্টার প্রকল্প। এক হাজার ছয়শো কোটি টাকা ব্যায়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীন গাজীপুরের কালিয়াকৈরে প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ হয়ে কোম্পানিতে রুপান্তরের কাজ চলমান পর্যায়ে রয়েছে।

    দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে বীর মুক্তিযোদ্ধা নৌকমান্ডোর সন্তান কামরুজ্জামান উক্ত বিষয় উল্লেখ্য পূর্বক গত ২৪ মার্চ, ২০১৯ তারিখে নির্বাহী পরিচালক, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল বরাবর আবেদন করলে তিনি আবেদনের কোন সুরাহা করেনি। পরবর্তীতে একই বিষয়ে সুরাহা পাওয়ার আশায় গত ৯ই জুলাই, ২০১৯ তারিখে সম্মানিত সচিব (বর্তমানে সিনিয়র সচিব), তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ বরাবর আবেদন করেন। পরবর্তীতে পর্যায়ে গত ১৭ই জুলাই, ২০১৯ তারিখে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা নৌ কমান্ডো এসোসিয়েশন সম্মানিত সচিব (বর্তমানে সিনিয়র সচিব), তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ বরাবর পত্র প্রদান করলে তার কোন তোয়াক্কা করেনি।

    গত ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ তারিখে সুত্রোক্ত স্মারকে “ ফোর টিয়ার জাতীয় ডেটা সেন্টার” স্থাপন শীর্ষক প্রকল্প হতে বরখাস্তকত মেইন্টেনেন্স ইঞ্জিনিয়ার (কম্পি ও নেট) পদবী দিয়ে নিয়োগপত্রে উল্লেখিত যোগদানের তারিখ ও ঠিকানা অনুসরণ না করে (পিতার নামের পাশে বীর মুক্তিযোদ্ধা উল্লখ না করে) তদন্তের বক্তব্য প্রদানের জন্য স্থায়ী ঠিকানা বরাবর পত্র প্রেরণ করেন। ফলে উক্ত পত্র প্রপ্ত হননি। পরবর্তীতে তদন্তকারী অফিসার দ্বারা ফোনের মাধ্যমে অবহিত হয়ে সশরীরে উপস্থিত থেকে ফাইলে উপস্থাপিত তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়ে অবগত হন এবং তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ন্যায়বিচারের জন্য আবারও ১৬ই ফেব্রয়ারি, ২০২০ তারিখে কামরুজ্জামান তার বক্তব্য ও জীবন বিবরণী সদ্য় বিবেচনার জন্য সিনিয়র সচিব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বরাবর প্রেরণ করেন। গত ০২ ডিসেম্বর, ২০১৯ তারিখে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণলয়ের মাননীয় মন্ত্রি মহোদয়ের নির্দেশনা মোতাবেক মন্ত্রানালয়ের উপ-সচিব (প্রসাশন-১) বিষয়টি নিষ্পত্তি করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব বরাবর পত্র প্রদান করেন সেটাও প্রকল্প পরিচালক তোয়াক্কা করেনি।

    এই বীর মুক্তিযোদ্ধা নৌ-কমান্ডোর সন্তান গত ১৭ই এপ্রিল, ২০১৯ ও ২৯ই জুলাই, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সিস্টেম এনালিস্ট ও প্রোগ্রামার পদে আবেদন করেন কিন্তু যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও সর্বশেষ চাকরির ছাড়পত্র না থাকায় অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে যা তার ভবিষ্যৎ কর্মজীবনকে বাঁধাগ্রস্ত করার পাশাপাশি অন্ধকারে নিপাতিত করেছে এবং সামাজিক জীবনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ব্যাক্তিগতভাবে চরম আর্থিক ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন করেছে। বিজ্ঞপ্তি।

    সর্বশেষ

    পড়েছেন তো?

    Stay in touch

    To be updated with all the latest news, offers and special announcements.