Saturday, April 20, 2024
More

    সর্বশেষ

    আইডিয়া প্রকল্পের ‘ব্লকচেইন প্রযুক্তি’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ

    গত শনিবার (৬ জুন) অনলাইনে ‘ব্লকচেইন প্রযুক্তি’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ আয়োজন করে আ্ইসিটি বিভাগের বাংলাদেশ কমপিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) অধীনে উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প আইডিয়া (iDEA)। প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সম্মানিত সদস্য প্রফেসর ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন এবং বিসিসির নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব। অনলাইন অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক সৈয়দ মজিবুল হক।

    এন এম জিয়াউল আলম বলেন, ব্লকচেইন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রযুক্তি যার সঠিক ব্যবহার করা প্রয়োজন। ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজির উপর আমাদের তরুণদের মধ্যে যথেষ্ট আগ্রহ আছে। ফ্রন্টিয়ার প্রযুক্তি ব্যবহারে আইসিটি বিভাগ ‘সম্মুখ ভাগের সৈনিক’ হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। তবে এক্ষেত্রে আমাদের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন প্রশিক্ষিত জনবল। ব্লকচেইন প্রযুক্তির মাধ্যমে দেশের সার্বিক ব্যবস্থাপনাকে আরও উন্নত করার পাশাপাশি স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে বলেও অভিমত প্রকাশ করেন তিনি।

    ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, করোনার কারনে আমরা এখন একটি কঠিন এবং অবর্ণনীয় সময়ে আছি। এই মহামারীর সময়ে আমাদের ট্রান্সপারেন্সি ও অ্যাকাউন্টেবিলিটি নিশ্চিত করতে হবে। এই ব্লকচেইন প্রযুক্তি ট্রান্সপারেন্সি নিশ্চিত করতে পারে। এর উপযুক্ত ব্যবহার করা প্রয়োজন। শিক্ষার ও গবেষণার কোন বিকল্প নেই। এসময় সবাইকে মনোবল শক্ত রাখতে হবে। আমাদের সবাইকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, গবেষনা এবং আইসিটি স্কিলের উপর বিশেষ নজর দিতে হবে। সবাই মিলে দেশকে অবশ্যই একটি সম্ভাবনার দিকে নিয়ে যাব।

    পার্থপ্রতিম দেব বলেন যে, আমরা একটি উদ্ভাবনী পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাই যার মাধ্যমে একটি অন্ট্রপ্রিনিউরশীপ কালচার তৈরি করা সম্ভব হবে। পৃথিবীতে ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজির যে প্রচলন চলছে সেই সম্পর্কে আমরা সকলকে পরিচিত এবং ধারণা দেওয়ার চেষ্টা চলমান রাখব।

    সৈয়দ মজিবুল হক বলেন, ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি ছাড়া আগামীতে বিভিন্ন কার্যক্রমের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা কঠিন হবে। যদি আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং বলি অথবা অন্য কোনো কার্যক্রম গ্রহণ করতে চাই তবে আমাদের অবশ্যই ফ্রন্টিয়ার টেকলোজির সহোযোগিতা নিতে হবে। অর্থাৎ ব্লকচেইন প্রযুক্তি একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় মাধ্যম। আমাদের বর্তমান প্রজন্মকে ফ্রন্টিয়ার টেকলোজি না শেখাতে পারলে ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের সময়কালে আমাদেরকে পিছিয়ে পরতে হবে এমনটাই মনে করছেন তিনি।

    দিনব্যাপী এই প্রশিক্ষণটিতে রিসোর্স পারসন ছিলেন জাপানের হায়াগো বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েট স্কুল অব সিমুলেশন স্টাডিসের রিসার্স ফেলো রুবাইয়াত ইসলাম, দি কমপিউটার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ব্লকচেইন বিশেষজ্ঞ খন্দকার আতিক-ই-রাব্বানী এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্সটিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজির (আইআইটি) সহযোগী অধ্যাপক ড. বি এম মইনুল হোসেন।

    এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বেসিকস অ্যান্ড ইভোলিউশন অব ব্লকচেইন, সাপ্লাইচেইন ব্যবস্থাপনায় ব্লকচেইন এবং ব্লকচেইন প্রযুক্তির ভাবনা ও বিস্তারিত প্রশিক্ষণার্থীদের নিকট উপস্থাপন করা হয়। এই প্রশিক্ষণে বরিশাল অঞ্চলের প্রায় ৬০ জনের অধিক প্রশিক্ষণার্থী অনলাইন প্ল্যাটফর্ম জুমের মাধ্যমে সংযুক্ত হন যাদেরকে সনদপত্র প্রদান করা হবে।

    বিসিসির বরিশাল বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক মো. মনিরুল ইসলাম, আইডিয়া প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক কাজী হোসনে আরা, প্রকল্পের সিনিয়র পরামর্শক আর এইচ এম আলাওল কবির, প্রকল্পের টেকনোলজি ম্যানেজমেন্ট স্পেশালিস্ট মেহেদী হাসান ভূঁইয়া, প্রকল্পের পরামর্শক মনিরুল ইসলাম, সোহাগ চন্দ্র দাসসহ বরিশাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ, বিসিসি ও আইসিটি বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ এ সময় অনলাইনে উপস্থিত ছিলেন।

    সর্বশেষ

    পড়েছেন তো?

    Stay in touch

    To be updated with all the latest news, offers and special announcements.